অধ্যয়ন নির্দেশিকা আৰু ৰণ কৌশল

শিখতে শেখাঃ

কোনো কিছু শেখার সবচে’ কাজের পথটাই হলো নিজেকে জানা ।

  • শেখার জন্যে তোমার সামর্থ্য ।
  • অতীতে যে পদ্ধতিগুলো তুমি সফলতার সঙ্গে ব্যবহার করেছো ।
  • যে বিষয়টি তুমি শিখতে চাইছো তার সম্পর্কে তোমার আগ্রহ এবং জ্ঞান ।

তোমার কাছে পদার্থবিজ্ঞান শেখাটা সহজ হতে পারে, কিন্তু টেনিস শেখাটা বড়ই কঠিন । এর উল্টোটাও সত্যি । শিক্ষা মাত্রেই একটা পদ্ধতি যা কিনা একাধিক ধাপ পেরিয়ে পুরো হয় । শেখার চারটা ধাপ হলোঃ এ পৃষ্ঠাটি ছেপে বের করো আর প্রশ্নগুলোর উত্তর দাও । তাতে যে উত্তরগুলো পাবে তাই দিয়েই এবং অন্যান্য অধ্যয়ন নির্দেশিকার ( Study Guide) সাহায্য নিয়ে তোমার পরিকল্পনা তৈরি করে ফেলো ।

অতীত দিয়ে শুরু করোঃ
তুমি কেমন করে শেখো -- এ নিয়ে তোমার অভিজ্ঞতা কেমন ?

তুমিকি পড়তে ভালোবাসো ? সমস্যা সমাধান করতে ? মুখস্থ করতে ? আবৃত্তি করতে তথা জোরে আওয়াজ করে পড়তে ? ব্যাখ্যা করতে ? বন্ধুদলের সামনে শেখা কথাগুলো আওড়াতে ?

তুমি কি সারাৎসার তৈরি করতে জানো ?

কী পড়লে তা নিয়ে কি নিজেকে কখোনো প্রশ্ন করো?
পুণর্বিবেচনা করো কি?

নানা উৎসের থেকে তথ্য সংগ্রহের সুবিধে আছে কি ?
তোমার কি নির্জনতা ভাল্লাগে , না অধ্যয়ন গোষ্ঠি ?
তুমি কি থেমে থেমে পড়ো না, লাগাতার অনেকক্ষণ ধরে পড়ে যেতে ভাল্লাগে ?

তোমার লখাপড়া করবার অভ্যেসগুলো কী রকম ? সেগুলো কী করে গড়ে উঠেছ?
কোনটা বেশি কাজে এসছে আর কোনগুলো একেবারেই না ?

তুমি যা শিখলে তা অন্যকে বোঝাতে গেলে সবচাইতে ভালো কী করে বোঝাবে ?
লিখে পৰীক্ষা দিয়ে , উত্তরপত্র তৈরি করতে দিলে , না সাক্ষাৎকারের মধ্যে দিয়ে ?

বর্তমানে এগিয়ে এসোঃ

এ বিষয়ে আমি কতটা আগ্রহী ?
এ বিষয়টা শিখতে আমি কতটা সময় দিতে তৈরি ?
আমার মনোযোগ কিসে বিঘ্নিত হয় ?

সফলতার জন্যে আমার চারপাশের পরিবেশটা কি ঠিক আছে ?
কোনগুলো আমি নিয়ন্ত্রণ করতে পারি, আর কোনগুলো আমার নিয়ন্ত্রণের বাইরে ?
সে পরিস্থিতিকে আমি কি সফলতাতে পরিবর্তিত করতে পারি ?

এ বিষয়টা শেখার জন্যে আমার প্রতিজ্ঞাটি কিসের দ্বারা প্রভাবিত ?

আমার কি কোনো পরিকল্পনা আছে ?
আমার পূর্বঅভিজ্ঞতা আর শেখার রীতিকে বিবেচনাতে নিয়ে কি আমি আমার এই পরিকল্পনা তৈরি করেছি ?

প্রক্রিয়াটিতে আসা যাক; বিষয় বস্তুঃ

নাম বা শিরোনাম কী ?
প্রকট হওয়া মূল শব্দ (key words) কোনগুলো ?
সেগুলো কি আমি বুঝতে পারি ?

এ নিয়ে আমি ইতিমধ্যে কী জানি ?
এর সঙ্গে সম্পর্কিত বিষয়গুলো জানি কি ?

কোনধরণের তথ্য আকর আমাকে সাহায্য করবে ?
তথ্যের জন্যে আমি কি শুধু একটাই উৎসে ( যেমন , পাঠ্যবই ) নির্ভর করব ?
আমার কি আরো অতিরিক্ত উৎসের দরকার পড়বে ?

আমি যখন লেখাপড়া করি তখন কি ‘বুঝতে পারলাম কি না’ এ নিয়ে নিজেকে প্রশ্ন করি ?
আমার কি দ্রুত পড়া উচিত না ধীরে ধীরে ?
আমি যদি কিছু একটা না বুঝি , তখন কি ‘কেন বুঝিনি’ জিজ্ঞেস করি ?

আমি কি পড়তে পড়তে থেমে যাই এবং সারাৎসার তৈরি করি ?
আমি কি থেমে যাই আর কাজটা কি ঠিক যুক্তিপূর্ণ হচ্ছে –এমন প্রশ্ন করি কি ?
আমি কি থেমে যাই আর এর মূল্যায়ণ করতে ( অর্থাৎ , ইতিমধ্যে যেটুকু পড়লাম তার সঙ্গে আমি সম্মত না অসম্মত ) শুরু করি কি ?

এ নিয়ে কি আমার আরো সময়ের প্রয়োজন যাতে কিছু ভাবনা চিন্তা করে নিয়ে পরে আবার বিষয়টিতে ফিরে আসতে পারি ?
এ কথাটা কি আমার অন্য ‘শিক্ষার্থীদের’ সঙ্গে আলোচনা করে নেয়া দরকার যাতে করে আমি তথ্যগুলোকে ব্যবস্থাপিত করতে পারি ?
আমার কি একজন এ বিষয়টির উপর কর্তৃত্ব থাকা কাউকে চাই --- যেমন শিক্ষক , গ্রন্থাগাৰিক ?

পুনর্বিবেচনা করার পথঃ
আমি কদ্দূর ঠিক করে করলাম ?
আমি কতটা আরো ভালো করে করতে পারি ?
আমার ক্ষমতা ও অক্ষমতা নিয়ে আমি যেভাবে কাজ করি তার সঙ্গে আমার পরিকল্পনা কি খাপ খেয়েছে ?

আমি কি সঠিক সর্তগুলো বেছে নিয়েছি ?
আমার কাজের শেষটা কি ভালো হলো ; আমি কি নিজের প্রতি নিয়মানুবর্তী ছিলাম ?

আমি কি সফল হলাম ?
এবারে কি তা হলে আমার সফলতা উপভোগ করতে পারি ?

প্রজ্ঞান,
তিনসুকিয়া মহাবিদ্যালয়

To read Bengali text, please
download the Avro Keyboard
or the font SolaimanLipi